Tag Archives: Bangladesh

“Can’t buy you medicine anymore….”

Written by and posted on behalf of Abu Sufian Raihan

সকাল ৬:৩০ স্থানঃ সাভারের এক বস্তি

“মা শারমিন ওড, গার্মেন্টসে যাবি না?” বলল শারমিনের মা। মার ডাক শুনে তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে উঠে বসল শারমিন। “হুম যামু মা। কয়ডা বাজে?” “সাড়ে ছয়ডার মত। যা তাড়াতাড়ি গোসল কইরা ল। পরে আবার সিরিয়াল পইরা যাইব” “শাওন কই?” “এহনও বাড়িত আহে নাই”শুনে দীর্ঘ নিঃশ্বাস ফেলে শারমিন। ভাইটাকে টাকার অভাবে পড়াতে পারল না শারমিন।নষ্ট হয়ে যাচ্ছে তার ছোট ভাইটা। “বাবা আর তোমার ওষুধ আছে?” “আজকে দুপুর পর্যন্ত হইব” “আচ্ছা আজকে আসার সময় নিয়া আসুম” বলল শারমিন। এদিকে আবার কালকে গার্মেন্টসে ফাটল দেখা দিসে।তাড়াতাড়ি ছুটি দিয়ে আজকে সকালে যেতে বলছে।বলে দিছে আজকে না গেলে বেতন দিব না। সবাই গরীবের পেটে লাথি মারতে চায়।এসব ভাবতে ভাবতে গোসল করতে গেল শারমিন।

সকাল ৯:০০ স্থানঃ রানা প্লাজা

শারমিন কাজ করছে সাত তলায়। পাশে মৌসুমী বক বক করে যাচ্ছে। আর তা শুনে হাসছে শারমিন। হঠাত মনে হল ভূমিক্মপ হচ্ছে।পায়ের নিচের ফ্লোর কেপে উঠছে। মাথার উপর ছাদ ভেঙ্গে পড়ল শারমিন সহ সাততলায় কাজ করা আর সবার উপর।

সকাল ১১ টা স্থানঃ রানা প্লাজার ধ্বংসস্তুপ

চারপাশ অন্ধকার। নিশ্চুপ। এক ভূতুরে পরিবেশ। শারমিন চোখ খুলল। তার মাথায় তীব্র ব্যাথা। একবার মা বলে চিৎকার করে উঠল শারমিন। কোন সাড়াশব্দ নেই । সে তার বাম হাত নাড়াতে পারছিলনা। পায়ের উপর একটা বীম পড়ে গেছে। সারা শরীর অসার হয়ে যাচ্ছে। তার বাম পাশে পড়ে আছে তাদের সুপার ভাইজারের লাশ। তার হাতে একটা কাগজ আর কলম ছিল সে অনেক কষ্ট করে সুপার ভাইজারের হাত থেকে ছুটিয়ে নিল। তারপর কিছু লিখল কাগজটাতে। আর শক্ত করে ডান হাতে কাগজটা ধরে রাখল এবং চিরদিনের জন্য হুমিয়ে গেল|

দুপুর ৩টা স্থানঃ রানা প্লাজার ধ্বংসস্তুপ

উদ্ধার কাজ চলছে। ধ্বংস স্তূপের বাহিরে অনেক মানুষ। হঠাত বের  হয়ে আসল একটা লাশ। একজন মেয়ের লাশ। হাতের মধ্যে সাদা কাগজে ২ লাইন লেখা। “আম্মা-আব্বা আমারে মাফ কইরা দিউ তোমাগোরে আর ঔষুধ কিনে দিতে পারবনা। ভাই তুই আম্মা আব্বার দিকে খেয়াল রাখিছ” হতভাগা মা চিঠি আর মেয়ের ছবি নিয়ে একটু কাঁদছে আর বেহুঁশ পড়ছে।এরকম দৃশ্য দেখার পরে আর কোন মানুষ হয়ত চোখের পানি টুকু আটকিয়ে রাখতে পারবেনা।

Image borrowed for effect (Source: UNBconnect. Reported on: December 31st, 2013 08:54:18 pm)

Note: The story above has been based on true events. A nine story building did collapse on 24th April 2014 claiming thousands of lives. A corpse was found in the rubble clutching a 2-line note saying, “Amma and Abba (Dear Mom and Dad), please forgive me because I won’t be able to buy your medicine anymore. Dear brother, please look after Amma-Abba.”

The identities of the corpse and her family remain unknown. The writer has taken some liberty in writing around the facts in an attempt to empathize with the victim during the last hours of her life.

Collected from: Help the people of Savar Tragedy

 

 

 

Advertisements

Dissent and Digital Bangladesh

“To learn who rules over you, simply find out who you are not allowed to criticize.” – Voltaire.

There is nothing more patriotic or sacred than the act of dissent. It is neither synonymous, nor tantamount to disloyalty. Dissent helps breed varied opinions, personifies democracy in its most functional nature. Yet we see laws like the ICT Act (Amendment) 2013 designed with the sole aim of punishing dissent.

Under this law, one could be arrested and denied bail, sentenced up to 14 years of imprisonment, and fined up to ten lakh taka for publishing content online that the state sees as “untrue and obscene”. The police do not need warrants to arrest someone and monitor his confidential correspondences on the phone or online. Private information collected without warrants can be admissible in a court of law!

The language in the new Act is vague as to the nature of the offence – “…defamation, deterioration of law and order situation, tarnishing the image of the state or individuals and hurting people’s religious sentiments….” – so dissent in essence.

While we do not have any definitive guidelines to determine whether an offence has been committed, by omitting legal checks such as warrants, the law gives the state unlimited prosecutorial powers. The law circumvents our constitutional rights regarding freedom of expression and privacy.

My expectations for the ICT Act Amendment were high. Foreign entities steal our personal data, hack into our personal profiles online, transfer data illegally to third parties who send us unsolicited emails and advertisements to our browsers. The worst part is they get away with it because they are not part of our jurisdiction. The ICT Act could have addressed that if it were truly designed to protect public interest.

Instead of addressing the more critical issues of illicit data theft and data sharing policies by web companies, unsolicited direct marketing, etc. by companies that do not fall under our jurisdiction according to present laws, our parliament passed a bill that only safeguards the powerful from being criticized.

A cursory look at our new ICT law would show any conscientious person how unfaithful our lawmakers are to our democratic precepts, never mind the promise of a “Digital Bangladesh”! Laws such as the ICT Act 2013 only help our state become more archaic and incompetent for a democracy.